এবার পুরো পৃথিবী বাংলায়

ঘর সাজাতে নিজেই তৈরি করে ফেলুন ইমোজি পিলো

ঘর হবে ফেসবুকময়!

আধুনিক যুগে দ্রুত যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম হলো ফেসবুক। মানুষ তাদের মনের কথা অন্যকে জানাতে এবং তাদের পরিচিতদের সাথে যোগাযোগের জন্য ফেসবুক তৈরি করেছে নানা রকমের ইমোজি ও স্টিকার। সারা দিন এই সব ইমোজি ও স্টিকার আমরা এতো ব্যবহার করে থাকি যে , মাঝে মাঝেতো আমরা আমাদের স্বপ্নের মাঝেও হানা দেয় এসব ইমোজি। এই সব ইমোজি যদি আমরা আমাদের ভার্চুয়াল লাইফের সাথে সাথে বাস্তব জীবনেও ব্যবহার করতে পারি তাহলে কেমন দেখাবে ? হ্যাঁ, এসব ইমোজিকে পিলো রূপে বানিয়ে ব্যবহার করতে পারি এবং আমাদের ঘরের সৌন্দর্যকে আরো দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে পারি । চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক কিভাবে ইমোজি পিলো বানাতে হয়।

একটি ইমোজি পিলো  বানাতে যা লাগবে

১। হলুদ রঙের কাপড় আধা গজ (চাইলে আন্য রঙের কাপড়ও নিতে পারেন)
২। সবুজ ও লাল রঙের সুতো
৩। সুঁই ( চোখ, ঠোঁট ও চুল বানাতে )
৪। তুলা
৫। আঠা বা গাম


কিভাবে বানাবেন


১। প্রথমে হলুদ রঙের কাপড়টি গোল শেইপ করে কেটে নিতে হবে। এরপর এটিকে একপাশের মুখ খোলা রেখে পুরো কাপড়টিকে সেলাই করে দিতে হবে । একপাশের মুখ খোলা রাখতে হবে কারণ যাতে এতে তুলা ঢুকানো যায়।

২। এখন কাপড়ের ওপর চোখ ,নাক ঠোট,, ও চুলের শেইপ করে সুতো কেটে সেলাই করে দিতে হবে।
চুল যেভাবে বানাতে হবে ।

চুল বানাতে প্রথমে সুতোকে হাতের চার আঙ্গুলের মধ্যে পেচিয়ে নিতে হবে, এরপর পেঁচানো অংশের মাঝ বরাবর অন্য একটি সুতো দিয়ে গিট দিতে হবে ,এরপর পেচানো সুতোর দুই মেরূ গুলো কেটে ফেললে চুলের মত দেখাবে । একই ভাবে ঠোট নাক ও চোখ বানাতে হবে।

ঠোটের লাগানোর ক্ষেত্রে ঠোটেরর মাঝ বরাবর সেলাই করে দিতে হবে এবং এরপর ঠোঁটের শেইপ করে এর দুই মেরুতে গাম লাগিয়ে দিতে হবে যাতে শেইপটা নড়ে না যায়।

চোখ, নাক , ঠোট ও চুলের জন্য সুতোর পরিবর্তে চাইলে বিভিন্ন রঙের কাপড়ও ব্যবহার করা যাবে তবে কাপড়টি কালো রঙের হলে বেশি ভালো দেখাবে ।

৩। এখন কাপড়ের যে অংশে মুখ খোলা ছিল ঐদিক দিয়ে তুলা ঢুকিয়ে দিতে পুরো মুখ সেলাই করে দিতে হবে ।
এতে সহজেই তৈরী হয়ে গেলো আমাদের ইমোজি বালিশ।

বি. দ্র .- চাইলে ২নং কাজের আগে ৩নং কাজটি করা যাবে।

লেখিকা- চন্দ্রপ্রভার রাত্রি, শিক্ষার্থী, ফার্মেসি বিভাগ, বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি, চট্টগ্রাম

মন্তব্য
লোডিং...