এবার পুরো পৃথিবী বাংলায়

ফুড ব্যাংকঃ আপনার অনুষ্ঠানে বেঁচে যাওয়া খাবার পৌঁছে যাবে অসহায় মানুষের কাছে

215

- Advertisement -

প্রচেষ্টা ফুড ব্যাংকিং- বেঁচে যাওয়া খাবার ফেলে না দিয়ে অসহায় দরিদ্র মানুষের মুখে তুলে দেওয়া।

ঠিক এই ইচ্ছা থেকেই প্রতিরাতে আমরা অপেক্ষায় থাকি কখন আমাদের নাম্বারে (০১৮৪২-০০ ২০ ২৩) ফোন আসে। কোথায় বিয়ে, জন্মদিন বা যে কোন অনুষ্ঠানে খাবার বেঁচে গিয়েছে এবং তাৎক্ষনিক ভাবে দ্রুত খাবার গুলো সংগ্রহ করে পৌঁছে দিতে পারি অসহায় অভুক্ত মানুষের কাছে। অতিরিক্ত খাবারগুলো প্রায়ই বিতরণ করি আমরা এতিমখানা, মাদ্রাসা এবং বৃদ্ধাশ্রমে।

রাত ১০-১১ টা থেকে ফোন কল রিসিভ করে খাবার প্যাকিং ও বিতরণ করতে করতে প্রায়ই ভোর ৬টা-৭টা বেজে যায়। গভীর রাতে এতিম বাচ্চাদের জন্য একটু ভালো খাবার নিয়ে ওদের দুয়ারে পৌঁছানোর পর ওদের মুখের হাসি দেখেই আমাদের রাত জাগার ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। অনেক সময় বৃদ্ধাশ্রমে প্রয়োজনের তুলনায় বেশি খাবার দেওয়া হলে তারা বেশ কয়েক বেলা তৃপ্তি করে খেতে পারেন। এছাড়াও তাৎক্ষণিক রাস্তার পাশে শুয়ে থাকা বৃদ্ধ, পথ শিশু এবং রেলস্টেশন বস্তি ইত্যাদি জায়গায় খাবার গুলো বিতরণ করা হয়।

- Advertisement -

গভীর রাতে শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খাবার সংগ্রহ করে বিতরণ করতে প্রায়ই নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এছাড়াও নিজস্ব কোন পরিবহণ ব্যবস্থা না থাকায় ভোগান্তি হয় অনেক। তারপরেও এইসব প্রতিকুলতা কাটিয়ে উঠেই দিন-রাত সমান ভাবে কাজ করে যাচ্ছে প্রচেষ্টা ফুড ব্যাংকিংএর স্বেচ্ছাসেবীরা। রাতের বেলা ছেলেদের পাশাপাশি দিনের বেলা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছে প্রচেষ্টার মেয়ে স্বেচ্ছাসেবিকারা।

আমরা ফুড ব্যাঙ্কিং শুরু করি ২০১৬ সালের মে মাসের ১৯ তারিখ থেকে। এখন পর্যন্ত আমরা সফলভাবে সম্পন্ন করেছি প্রায় ১৭২টি প্রজেক্ট, যার অর্থ প্রায় ১৭২ জায়গা থেকে ১৭২ বার খাবার সংগ্রহ করেছি আমরা। এবং খাবার দিতে পেরেছি আনুমানিক ৫০,০০০-৫১,০০০ মানুষের মুখে। তাদের দোয়ায় ঢাকার গন্ডি পেরিয়ে সিলেট, চিটাগাং জেলায়ও নিয়মিত কাজ করছি আমরা।

লেখকঃ সাফায়েত জামিল

মন্তব্য
লোডিং...